পিপাসু বাছুরের মত সুর চড়িয়ে চিৎকার করতে পারলে
অনেক কিছু ঘটে ,
দুধ দিয়ে যায় গরু ,কালেভদ্রে বালতি উলটে লাথিও ঝাড়ে গোচচার ।
বেসুরে চেঁচালে ওপারার ধোপারা এসে পিঠে চাপায় গন্ধমাদন
বা তিরাশি-সিক্কা লাঠির বারি ।।
আবার ব্রিগেডে, মাছের বাজারে ওতে সুনাম হয় বই কি ।।
চায়ের দোকান , আজকাল-প্রতিদিন- বর্তমান সমৃদ্ধ পাড়ার রক ,
সার্কাসের তাঁবুতে গলাবাজি করে জোটে আটআনা, চারআনা,
নিদেনপক্ষে হাততালি , সিটি ,
বা এক্কেবারে মন্দ কপালে ‘চারে শুরু অক্ষরমালা’ ।।
তুলনায় ব্লগে গলাবাজির মহিমা অপার,
সোশ্যাল প্লাটফর্মে অভাগার কান্না শুনে ছুটে আসে সবাই ,
ঘিরে দাঁড়িয়ে বোঝার চেষ্টা করে –
পোড়াকপালটা পাগল না পটাশিয়াম ‘প্যায়ার-মাঙ্গা-নেট ‘ ;
সার্কেলটা গতরে বাড়ে , মজবুত হয় বন্ধুতা।।
গোটা চৈত্রমাসের চিৎকারে হয়েছেও ঠিক তাই -
হস্তিদা মেদিনীপুর থেকে ফিরেছেন ব্যারাকপুরে,
শাক্যমুনি সাইবেরিয়া থেকে ফিরে এসে এইছ- টি- টি- পি তে ত্রিশুল গেড়েছেন ;
সময় ধরে ফিরে এসে সমসাময়িক হলেন ঘনাদা;
এদিকে উত্তুরে হাওয়ার দিন শেষ,
পরিবর্তনের হাওয়ায় বা ধরে নিন তরজার হিটারে গলছে হিমবাহ ;
দিন গোনা শুরু উত্তর আসার অপেক্ষায় ।।
গল্প-কবিতার ছাতিম-ফুল ফ্লেভারের সুগন্ধ চারিদিকে ,
এবার শুধু একটু আত্মপ্রত্যয়ী হওয়া বাকি,
লাগসই সিরিঞ্জ ফুটিয়ে চর্যাপদের অসুখ সারলো বলে ।।
আমাদের কুলিকে এখন অনেক চেঁচামিচি ,
মুনি- ঋষি – শিরা – পীড়া , তারাপীঠ জুড়ে শুধু তারাদের ভিড় ।।

অসুখ সারলো চর্যাপদের
  • 4.50 / 5 5
2 votes, 4.50 avg. rating (87% score)

Comments

comments