নবকলমের নিরামিষাশী বিস্ফোরণের কথা শুনে মনটা কেমন উদাস হয়ে গেল। তাই ভাবলুম কিছু আমিষের গল্প বলা যাক। (তাছাড়া সবাই যখন সিরিজ লিখতে শুরু করেছে, আমিই বা বাদ যাই কেন?)
এখনও অবধি রান্নার লেখায় বেশিরভাগই নিরামিষ রান্নার কথা বলেছি। কিন্তু যাই বলুন, ঐ শাক দিয়ে যেমন মাছ ঢাকা যায়না, তেমনি নিরামিষ যতই জুত করে রাঁধুন না কেন, তা দিয়ে আমিষের মজাটা রিপ্লেস করা যায়না।
 
নানারকম অদ্ভুত জিনিসপত্র খেয়ে দেখার শখ ছোটোবেলা থেকেই। মেঠো ইঁদুর, পোকামাকড় থেকে শুরু করে কুমির, ব্যাং সবই খেয়ে দেখেছি একবার করে। সম্প্রতি বাইসন খেয়ে দেখলাম, মন্দ নয়। তবে বীফের সঙ্গে বিশেষ তফাত নেই। অবশ্য মাংস বিশেষজ্ঞ মাত্রেই জানেন গোরুর মাংস ভাল না ভেড়ার মাংস ভাল এই ধরনের তুলনা একেবারেই অর্থহীন, কারণ দেহের কোন অংশের মাংস, তার ওপর অনেক কিছু নির্ভর করে (শুধু দামগুলোর দিকে চোখ বোলালেই অনেকটা টের পাওয়া যায়)।
 
আজ যেটার কথা বলব তার নাম অক্স টেইল, অর্থাৎ ষাঁড়ের লেজ। বেশ সুস্বাদু মাংস। ভাল করে রাঁধতে পারলে তো কথাই নেই। ভেবেছিলাম মারসালা স্টাইলে রান্না করব। মারসালা এক ধরনের ইটালিয়ান ওয়াইন, রান্নাটাও ইটালিয়ান জাতের। কিন্তু করতে গিয়ে মনে হল একটু ইম্প্রোভাইজ করা যাক। সেটা করতে গিয়ে খেতে অসাধারণ হল বটে, কিন্তু যা হল তাকে "অক্স টেইল মারসালা" বললে রন্ধন বিশেষজ্ঞরা আমায় তেড়ে আসবেন। তাই বরং এর নাম দেওয়া যাক "ষাঁড়ের লেজ দিয়ে মারশালাকে!"
 
"ষাঁড়ের লেজ দিয়ে মারশালাকে!" বানাতে আপনার লাগবে -
৫০০-৬০০ গ্রাম ষাঁড়ের লেজ
১০০-১৫০ গ্রাম ইনোকি (Enoki) মাশরুম (অভাবে অন্য কোনো মাশরুম যা সূক্ষভাবে কাটা যাবে)
১ কাপ চিকেন স্টক
১/৪ কাপ টোমাটো পিউরি
১/২ কাপ মারসালা ওয়াইন
১ চা-চামচ রসুন কুচি
১ চা-চামচ আদা বাটা
২ বড় চামচ কুচি করা শ্যালট (অভাবে পেঁয়াজ)
৪-৫ টি কাঁচা লঙ্কা
১ চামচ কর্ন ফ্লাওয়ার
পরিমাণ মত নুন, হলুদ, গোলমরিচ এবং সামান্য চিনি
 
রান্নার কাজ বেশ সহজ। তার আগে দেখে নিন যেন ষাঁড়ের লেজগুলো চাকা চাকা করে কাটা থাকে। সাধারণত এভাবেই বিক্রি হয় দোকানে, কাজেই সমস্যা নেই। পাতলা চাকা হলে ভাল, সিদ্ধ হতে কম সময় লাগে। ইনোকি মাশরুম একধরনের এসিয়ান মাশরুম, সরু সরু সুতোর মত দেখতে। সেগুলোকে আড়াআড়ি কয়েকবার কেটে নিলেই ঝুরি আলুভাজার মত কাটা হয়ে যাবে। অন্য মাশরুম ব্যবহার করলে একটু কষ্ট করে এরকম সূক্ষ ঝুরি ঝুরি বানাতে হবে।
 
মাশরুমটা আলাদা জায়গায় অল্প হলুদ, নুন আর প্রয়োজনে সামান্য শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো দিয়ে ভাজা ভাজা করে নিন। অনেকটা ঝুরি আলুভাজার মতই লাগবে দেখতে। এবার একটা পাত্রে সাদা তেল গরম করে তার মধ্যে কুচো রসুন, কুচো শ্যালট আর অক্স টেইল দিয়ে দিন। আদা বাটা দিন। গোলমরিচ গুঁড়ো দিন। একটু নাড়ুন চাড়ুন। তার মধ্যে দিন টোমাটো পিউরি, মারসালা ওয়াইন আর চিকেন স্টক। অল্প আঁচে জলটা মেরে আনুন কিছুটা। সামান্য জলে গুলে দিয়ে দিন কর্ন ফ্লাওয়ারটা, সঙ্গে পরিমাণ মত নুন আর সামান্য চিনি। ঢাকা দিয়ে অল্প আঁচে রান্না করুন। মাংস সিদ্ধ হয়ে গেলে কাঁচা লঙ্কা দিয়ে নামিয়ে নিন। মনে রাখবেন আদা রসুন বা লঙ্কা খুব বেশি দেবেননা, তাহলে মারসালার ফ্লেভারটা পুরো ঢাকা পড়ে যাবে।
 
নামানোর পর উপরে ছড়িয়ে দিন ঝুরি ঝুরি মাশরুম গুলো। গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

 

 


 

এই রান্না ষাঁড়ের লেজের বদলে অন্য মাংস দিয়েও করা যায়, বা মারসালা ওয়াইনের বদলে অন্য ওয়াইন দিয়ে। কিন্তু তাহলে আদ্ধেক মজাই মাটি! তাই একটু কষ্ট করে জোগাড় করে ফেলুন এগুলো, আর বানিয়ে ফেলুন "ষাঁড়ের লেজ দিয়ে মারশালাকে!"

 

 

 

 

আমিষের মজা (১) – মারশালাকে!
  • 0.00 / 5 5
0 votes, 0.00 avg. rating (0% score)

Comments

comments