"শক্তিমান" পা হারাল , এবং তার সঙ্গে জীবনও । ঘোড়ার জীবনে তার গতিশীল পা ব্যতিরেকে আর পড়ে থাকা জীবন কতটুকুই বা ! ভারতবর্ষ এখন জাতি- ধর্ম – বিত্ত-রাজনৈতিক পরিচয় নির্বিশেষে প্রকৃত এবং রূপক দুই অর্থেই পা ভাঙা , কোমর ভাঙা কমজোরিদেরই জায়গা হয়ে গেছে। এখানে বলিষ্ঠতা, সৌন্দর্য , সৌকর্ষ, সুস্বাস্থ্য বিকট বলে মনে হয়, চোখে লাগে । তাই ধ্বংস করে সমস্ত সুউচ্চ , উৎকৃষ্ট জিনিসকে ধ্বংসস্তূপে পরিণত করার নামই এখন সমতা । এখানেই অধুনা ভারতীয়দের শ্লাঘা , আত্মতুষ্টি , বামন-ব্যক্তিত্ববোধের সন্তুষ্টি ।

এমনও বললেন কিছু বন্ধু যে , পুলিশ ঘোড়া "শক্তিমান" কে মারা হয়নি , সে নাকি পড়ে গিয়ে নিজের পা ভেঙ্গেছে । সারাদিন জল না খেয়ে মাথা ঘুরে পড়ে গেছে । এদেরকে কে বোঝাবে যে ঘোড়া প্রাণীটা হিন্দি সিনেমায় দেখানো হিরোর করওয়াচৌথ করা মা, দিদি বা স্ত্রী নয় ! একটি ঘোড়া প্রায় ২২-২৪ বছর বয়স অবধি প্রজননক্ষম থাকে অর্থাৎ যাকে বলে একেবারে প্রাইম হেলথ। এই সময়কালে শরীরের ওপরে প্রচুর ঝক্কি তারা নিতে পারে। খুব অযত্নে থাকলে তিরিশের কোঠায় গিয়ে আরথারাইটিস ইত্যাদি হয়। শক্তিমান এখনো যুবক। কিন্তু হতভাগ্য ভারতীয় যুবক। এই আমাদেরই মতো !
আমেরিকায় থাকাকালীন দুটো হর্স ফারমে গিয়ে মালিক- মালকিনের সঙ্গে আড্ডা মেরে , দেখে শুনে ঘোড়া সম্পর্কে এসব জেনে বুঝে এসেছি, কারণ ভবিষ্যতে ঘোড়া পোষবার একটা আবছা শখ রয়েছে বইকি। এরকম অসামান্য একটা প্রাণী র বন্ধু হবার সুযোগ ছাড়া যায় নাকি? যাই হোক, ঘোড়া প্রগতির প্রতীক । তার পা ভেঙে মুখ থুবড়ে ফেলে দেওয়াটা মেটাফর না হয়ে দাঁড়ায় !
বি জে পি এম এল এ কে সমর্থন বা সহানুভূতি জানাতে গিয়ে ঘোড়াকে ভেজা মুড়ি হিসেবে প্রমাণ করবার বিজ্ঞান বিরোধী চেষ্টা দেখে হাসি পায়। হাসি আর ভাবি আজকাল, কোথায় আছি ! কাদের মধ্যেই বা আছি !

খানিক সময় নষ্ট (২)
  • 0.00 / 5 5
0 votes, 0.00 avg. rating (0% score)

Comments

comments