'দরজিদোকানে অপারেশন টেবিলের  কাঁচিতে আহত'

  রঙের টুকরোটাকরা ঘটনাগুলো   

জীবনকে ঘিরে খেলা করে বিড়াল ছানার মতোই । 

ধুঁয়ো ওঠা  বনেদী পেয়ালার ভিতরকার চাপানউতোর  জিরিয়ে গিয়ে

সিংহল -মাদাগাস্কারের  ছাঁচের সরপুঞ্জ  দেখা দেবার মাঝখানেই

নিজেরাই আলতো থাবা চালিয়ে দেয়

একে অপরের নাকে-মুখে-ঘাড়ে ,

মক ফাইটেই তো বড় হবার আজমাইশ যাবতীয় !

এই চিরন্তন , দুর্নিবার খুনশুটি বাদেও আছে অন্য হীরত -এ-আফসানা  ;

যেখানে  গাপ্পি মাছের মতো  দল বেঁধে

 সাঁতরে চলা   কথা ও  কাহিনীর বাহারি লেজে

  আসফর -  আজরাখ -আহমর আন্দোলন  ।   

এ দৃশ্যে নিষ্পলক চোখে এক আঁজলা জল নিয়ে সেই কবে

নামী অভিধানকার বাতলেছিলেন নতুন শব্দ -

পরিপূরক । 

গাপ্পিরা চকিতে দিক বদলে জিয়ন বিদ্যুৎপ্রভা চারিয়ে দেয়

মন-মগজ-আল্ভিওলাস -আরটারি -টেন্ডনে ।

 অথচ, জীবন সজাগ হলে লোভাতুর নাইলন নেট তাড়া করে,

  ভীষণ  দমবন্ধ করা পলিপ্যাকব্যাদান আত্মস্মাৎ করে নেয় ঠিক পিছনের জলায়তন,

অন্যায়, অসাংবিধানিক গ্রেপ্তারির নির্মম শব্দ শোনা যায়    !

বিকিয়ে নিঃশেষ হবার ভয়ে ক্রমশ গতি বাড়িয়ে ছুটে বেড়ায়  "ফিচারফিশ ",

জীবনের ভিতরে ও বাইরে ।

 নিছক ভয় কে জয় করবার তাগিদেই  বংশবৃদ্ধি করে চলে ।

ডায়েরির শেষ দিক থেকে ৩৬
  • 4.00 / 5 5
1 vote, 4.00 avg. rating (81% score)

Comments

comments