এমন সহজে মানুষের রক্ত ঝরে যায়
ভেতরে এবং বাইরে যে
সময়ভেদে তরুক্ষীর বলে ভ্রম হবে একদিন, হবেই ।

তরুক্ষীরের কথা অনেক লোকে তখনো তেমন শোনে নি,
তাই গলি এবং রাজপথে ,
কান থেকে কানে, মুখ থেকে মুখের মাঝপথে ,
কদাচিৎ ভুলবশতঃ, সদাচিৎ ফাজলামিবশতঃ
তরুক্ষীর হবে ক্ষীর;
ধোঁয়াশারা গর্ভবতী হবে ।

ফাঁকতালে মৌতাতলোভী কতিপয় মানুষ চাইবে
আরও, আরও বেশি ঝরুক;
আষাঢ় -শ্রাবণ -আশ্বিন জুড়ে ক্ষীরবৃষ্টি হোক ।

রক্তঝরা রক্তমাংসের মানুষ,
ব্যথা-বেদনা-যন্ত্রণায় থাকা মানুষকে
লোভী মানুষেরা গিলে নেবে ক্ষীরের পুতুলের মতোই ;
সানন্দে, সহজে, সগর্বে !

ঠোঁটচাটা তৃপ্তির শব্দে তাকাবেন
অবন ঠাকুর,
বারেক মুচকি হেসে মুখ ফেরাবেন
শেষবারের মতো

ডায়েরির শেষ দিক থেকে ৩৯
  • 0.00 / 5 5
0 votes, 0.00 avg. rating (0% score)

Comments

comments