বিস্ফারিত চোখের ভিতর মধ্যরাতে ,
ঘুম-না-আসা রাত লিখে যায় লাল শিরাতে -
উঠোনজোড়া জমাট বরফ গলবে কালই ,
শুকোক আঙন , ডালপাতাদের যেও সরাতে ।

যে ডালপাতায় ধরলে পচন ছোট্ট শিকড়,
শিকড় ক্রমে স্বাস্থ্য পেলে দেওয়াল ধরে ; 
সবজে দেওয়াল লতানেগাছের মামার বাড়ি, 
খুরপি দেখেই মুচকি হাসে ঠোঁট কামড়ে ।

খুরপিরও কি রাগ হয় না সময় সময়?
জং ধরেছে, সং সেজে তাই ঘুমিয়ে থাকে !
সূর্য যখন দিন- টহলের পশ্চিমে যায় ,
মরচে রঙেই কালচে ইটের গল্প আঁকে ।

গল্প সেসব উষ্ণ এমন বরফ গলায়,
শীতল জলের স্রোত আসে, আর রাগ ধুয়ে যায় । 
খুরপি যেমন ঘুমিয়ে ছিল ঘুমিয়ে থাকে,
বন্ধু গাছের সূর্য ঢাকায় আশকারা পায় ।

ডায়েরীর শেষ দিক থেকে ২২
  • 5.00 / 5 5
1 vote, 5.00 avg. rating (91% score)

Comments

comments