আগের পর্ব – ফিঞ্চ আর থ্রাশ  

এ পর্বের অতিথিরা আমাদের অতি পরিচিত পাখি – চড়াই। চড়াই শুনে আন্ডারএস্টিমেট করবেন না। আমাদের দেশের মত নয়, এখানে বাড়ির আশেপাশেই প্রায় ৪-৫ রকম চড়াই দেখা যায়। বনে-বাদাড়ে গেলে তো কথাই নেই। সারা আমেরিকায় কম করেও অন্তত গোটা কুড়ি রকমের চড়াই রয়েছে। তাদের মধ্যে সবাইকে অবশ্য নর্থ ক্যারোলিনায় দেখা যায়না।

House sparrow (male)

সবচেয়ে কমন অবশ্যই House Sparrow। হাউস স্প্যারো হল গিয়ে আমাদের চেনা চড়াইপাখি। ছেলেদের আর মেয়েদের আলাদা করে চিনতে কোনো অসুবিধে নেই ছেলেদের গলা আর বুকের কালো দাগ এবং মাথার ছাইরং আর খয়েরির বাহার দেখে। তবে হাউস স্প্যারোদের মধ্যেও বিভিন্ন উপপ্রজাতি আছে। তাই তাদের চেহারায় নানান বৈচিত্র্য দেখলে অবাক হবেন না। নীচের ছবি মেয়ে হাউস স্প্যারোটাকে প্রথমবার দেখে যেমন আমি হাউস স্প্যারো বলে চিনতেই পারিনি।

House sparrow (female)
 

House sparrow (female and young)

আরেকটা খুব কমন চড়াই হল Chipping Sparrow। এরা আকারে অনেক পুঁচকে, চেহারায় হাউস স্প্যারোর সঙ্গে একটু মিল থাকলেও ভাল করে লক্ষ করলেই তফাতটা বোঝা যাবে। গ্রীষ্মকালে এদের নর্থ ক্যারোলিনায় দেখা যায় সারাক্ষণ কিচিরমিচির করতে। ঘাসের ফাঁক থেকে বীজ খুঁজে খাওয়া চিপিং স্প্যারোর প্রিয় কাজ।

Chipping sparrow

Song Sparrow এর কিচিরমিচির প্রায় সংবার্ডদের গানের মতই। নানান চকরা বকরা গায়ে, তাই দেখে চেনা কঠিন নয়। শীতকালে এই মুলুকে বেশি আসে, তবে গরমেও দেখা যায়। এরা দলে থাকতে পছন্দ করে, তাই একটা সং স্প্যারো দেখতে পেলে আশেপাশে আরো পাবার সম্ভাবনা।

Song sparrow

বেশ ছোটোখাটো দেখতে Field Sparrow রা চেহারায় বেশ নরম গোছের। গায়ে আর ঠোঁটে হাল্কা গোলাপি আভা। নাম দেখেই বোঝা যাচ্ছে এরা থাকে মাঠের কাছাকাছি। সেখানের লম্বা ঝোপঝাড়ের মধ্যে চট করে চোখে না পড়লেও জোরালো ডাক শুনে সহজেই বোঝা যাবে এদের উপস্থিতি।

Field sparrow

আরেক ঘাসজমির চড়াই Savanna Sparrow দেখতে বেশ আকর্ষণীয়। ভুরুর হলুদ দাগ এদেরকে সহজে চিনতে সাহায্য করে। এরাও শীতকালেই এ মুখো হয় বেশি, তবে বসন্তের শুরুর দিকেও যথেষ্ট দেখা যায়।

Savanna sparrow

Fox Sparrow আর Dark-eyed Junco কে কিন্তু স্ট্রিক্টলি শীতকালেই দেখা যায়। দুজনেই সারাক্ষণ মাটির কাছাকাছি ঘুরঘুর করে আরে ঘাসের ফাঁক থেকে বীজ খুঁটে খায়। ডার্ক আইড জাঙ্কোর গায়ের সাদা কালোর ডিজাইন আমার বিশেষ প্রিয়।

Fox sparrow
 

Dark eyed junco

Dark Eyed Junco

Eastern Towhee কে দেখে একনজরে চড়াই শ্রেণীর মনে না হলেও আসলে এরা একই প্রজাতির। সাইজে অপেক্ষাকৃত বড়। গায়ের রঙ বেশ ব্রাইট বাদামী, কালো আর সাদা। মেয়েদের ক্ষেত্রে কালোর বদলে দেখা যায় মেটে রঙ। এরা পোকামাকড় খেতে বেশি পছন্দ করে। গলার জোর ভীষণ। ডাকটা শুনলে অনেকটা "টোউহি টোউহি" মনে হয়, এটাই এহেন নামকরণের কারণ। পরবর্তী পর্বগুলোতে এরকম আরও পাখির কথা পাবেন যেখানে তার ডাকটা থেকে নামকরণ করা হয়েছে। একটা বাচ্চা ইস্টার্ন টোউহির ছবিও দিলাম। সামনে থেকে তোলা বলে গোমড়ামুখো আর মজাদার লাগছে।

Eastern towhee (singing male)
 

Eastern towhee (female)
 

Eastern towhee (young)

জলাজঙ্গলে গেলে প্রচুর পরিমাণে দেখা যায় Swamp Sparrow। তবে এদের ছবি তোলা তুলনায় মুশকিল, কারণ এরা ঝোপেঝাড়ে লুকিয়ে থাকে, আর সেইসঙ্গে প্রচণ্ড চঞ্চল। এদের চেহারা দেখে সং স্প্যারোর থেকে বিরাট আলাদা মনে হবেনা, তবে ভুরু গলা এবং বুকের কাছটা অন্যরকম।

Swamp sparrow

আমার সবচেয়ে সুন্দর দেখতে চড়াই এর কথা শেষের জন্য রেখেছিলাম – White-throated Sparrow। ছাই ছাই রঙ, কালো চুলের মাঝে সাদা সিঁথি, সাদা আর উজ্জ্বল হলুদে মেশানো ভ্রূ। আরেক ধরণের হোয়াইট থ্রোটেড স্প্যারো দেখা যায় যাদের ভুরুতে সাদা-হলুদের বদলে বাদামী রঙ থাকে, তাদের বলে ট্যান স্ট্রাইপড হোয়াইট থ্রোটেড স্প্যারো। শীতকালে চারিদিকে প্রচুর প্রচুর পরিমাণে দেখা যায় এদের। সামনে থেকেও একটা ছবি দিলাম এদের কপাল আর গলার ডিজাইন ভাল করে বোঝার জন্য। সং স্প্যারোর গান দারুণ বটে, কিন্তু এরা তাদেরকেও টেক্কা দেবার ক্ষমতা রাখে। পুরুষ পাখিটি যখন গলা উঁচু করে গান ধরে, শীতের জঙ্গল কাঁপতে থাকে সেই সুরে।

White-throated sparrow
 

White-throated sparrow
 

Tan striped white-throated sparrow

শিগগিরই ফিরে আসব, এবার ফ্লাইক্যাচারদের সঙ্গে নিয়ে।

 

*** সমস্ত ছবি আমার Canon Powershot S3 IS দিয়ে তোলা।

 

পরের পর্ব – ফ্লাইক্যাচার  

নর্থ ক্যারোলিনার পাখি (৩) – চড়াই
  • 0.00 / 5 5
0 votes, 0.00 avg. rating (0% score)

Comments

comments