আগের পর্ব – ছোট্ট আর চঞ্চল  

জলদিই ফিরে এলাম, বড় পাখিদের নিয়ে। বড় পাখি শুনে আবার বৃহচ্চঞ্চু টাইপ সাংঘাতিক কিছু ভেবে বসবেন না, এমন কি চিল শকুনের মতও না। তেনারা থাকবেন আলাদা করে শিকারী পাখিদের দলে। আপাতত "বড়" বলতে গত দু-তিন পর্বের পুঁচকে পাখিদের চেয়ে বেশ কিছুটা বড় চেহারার পাখিদের কথা বলতে বসেছি। আকারে ছোট থেকে বড়র দিকেই যাওয়া যাক।

Yellow-billed Cuckoo

আজকের প্রথম অতিথির নাম Yellow-billed Cuckoo। চেহারায় খুব রঙচঙে কিছু না, আর তাই খুব সহজেই আত্মগোপন করতে পারে গাছের পাতার ফাঁকে। কাকু প্রজাতির পাখিদের মত এদেরও প্রিয় খাদ্য শুঁয়োপোকা। সাধারণ গুটিপোকা কিন্তু পছন্দ না, বেশ রোমশ বড়সড় শুঁয়োপোকা চাই। এই ছবিতেও দেখা যাচ্ছে ইবি কাকুর মুখে শুঁয়োপোকা।

Mourning Dove

Mourning Dove

এরপর আসবে বিভিন্ন ধরনের ঘুঘু বা পায়রা প্রজাতির পাখিরা। এখানের দু রকম কমন ঘুঘু পাখি হল Mourning Dove আর Eurasian Collared Dove। আমাদের দেশের ঘুঘুদের মতই ব্যবহার। এমনিতে চুপচাপ থাকে, কিন্তু নিঃঝুম দুপুরে মোর্নিং ডাভের "ঘু ঘু" ডাক শুনতে পাওয়া যায়। এরা খুব রোম্যান্টিক পাখি। প্রেমিকা বেছে নেবার পর সাধারণত তার সঙ্গেই সারাজীবন কাটায়। এদের কোর্টশিপ ড্যান্সের একটি ভিডিও দেখতে পাবেন এখানে । কলারড ডাভ আমাদের দেশেও দেখা যায়। ঘাড়ের কাছে কালো দাগের থেকে এই নামকরণ। এরা আসলে আমেরিকার পাখি নয়, কোনো এক কালে এদের ধরে আনা হয়েছিল এই মুলুকে। তারপর থেকে বংশবৃদ্ধি করে এখন গোটা দেশে ছেয়ে গেছে।

Eurasian Collared Dove

এরা দুজন বাদে রয়েছে Rock Dove, যা আর কিছুই না, স্রেফ আমাদের পায়রার ভায়রাভাই। শহুরে অঞ্চলে এদের ঘুরঘুর করতে দেখা যায় অনেক সময়ই। কিন্তু বনে বাদাড়েও দেখেছি অনেকবার। স্বভাবত মানুষের গা-ঘেঁষা। মানুষের ফেলে দেওয়া খুদ-কুঁড়োর ওপর অনেক সময়ই নির্ভর করে থাকে। 

Rock Dove

এবার যাদের কথা বলব তাদের অসাধারণ নীল রঙ দেখে বোঝা মুশকিল এরা কাকের নিকটাত্মীয়। এত আকর্ষণীয় চেহারার পাখি এ অঞ্চলে খুব কমই আছে। কিন্তু তাহলে কি হবে, এই Blue Jay রা স্বভাবে প্রচণ্ড খিটখিটে। প্রায়ই দল বেঁধে তাড়া করে অন্য পাখিদের। অন্য পাখিরা এদের টেরিটরিতে খাবার খুঁজতে এলেও তেড়ে ফুঁড়ে ওঠে। গলার ক্যাঁক ক্যাঁক আওয়াজ শুনলেও মনে হয় সর্বদা বাজে মুডে আছে।

Blue Jay

Blue Jay

Northern Bobwhite সুন্দর দেখতে গোলগাল পাখি, তিতির জাতের। মাঠে এবং জলা অঞ্চলে বেশি পাওয়া যায়। মাংসের জন্য প্রচুর শিকার করা হয় এদের। দুটো ববহোয়াইটকে হাতের সামনে পেয়েও ভাল ছবি তুলতে পারিনি নিজের দোষে। তবু সেই খারাপ মানের ছবিটাই দিলাম এখানে, স্রেফ সম্পূর্ণতার খাতিরে। পরে ভাল ছবি পেলে পালটে দেওয়া যাবে।

Northern Bobwhite

শেষ যে পাখিটির কথা বলব তারা সত্যিকারের বড় পাখি। Wild Turkey। নামে সবাই চেনেন টার্কিদের। মূলত মাংসের জন্য বিখ্যাত, শিকারও হয় প্রচুর। তবে থ্যাঙ্কসগিভিং এ যে টার্কির মাংস খেয়ে থাকেন তারা অবশ্য বুনো নয়। ওয়াইল্ড টার্কি দেখতে বদখৎ টাইপের, মেঠো অঞ্চলে দলে বেঁধে ঘুরে বেড়ায়। তবে আমাদের সমতলে তত বেশিও দেখা যায়না, নর্থ ক্যারোলিনার পাহাড়ী অঞ্চলে গেলে যত্রতত্র চোখে পড়ে।

Wild Turkey

আজকের মত এই অবধি। পরের পর্বে দেখা হবে ব্ল্যাকবার্ডদের সঙ্গে।

 

পরের পর্ব – কালো তা সে যতই কালো হোক  

*** সমস্ত ছবি আমার Canon Powershot S3 IS দিয়ে তোলা।

 

নর্থ ক্যারোলিনার পাখি (৭) – বড় পাখি
  • 0.00 / 5 5
0 votes, 0.00 avg. rating (0% score)

Comments

comments