যা কালো টাকা উদ্ধার হবে বলে মনে হচ্ছে ( আদৌ ঘোড়া কদ্দুর ডিম পাড়বে সেটা বলা কঠিন , আম্নিওটিক স্যাক ম্যাচিওর করতেই তো লেগে যায় মাস সাতেক—-  অবশ্য থাক ! এসব আবার বিজ্ঞানের ব্যাপার !  ) তাতে করে চাষির ক্ষতি , সারদার ক্ষতি , খরার সমস্যা এসব মিটিয়ে ফেলতে পারা উচিত । কান মুলে, নাক কেটে  যাকে যা শাস্তি দেবার দিয়ে টিয়ে একসময়ে  কাজের কথা উঠবে  । সেইক্ষণে তথা কার্যক্ষেত্রে আবার যদি কথা ওঠে যে সুইস ঘোড়া ডিম না পাড়লে পক্ষীরাজ পয়দা হবে না, অতএব মঙ্গলে যেতে দেরী হবে; তাহলে কিন্তু ফুল কেলো হবে । ডিম টিম পেড়ে মাদী ঘোড়ার বেজায় খিদে লাগবে , এবং তখন কিন্তু নির্দ্বিধায় বিনি পয়সায় চাষের গম, বা গোলাপি নোট যা সামনে পাবে খেয়ে নেবে। বলে দিলুম সময় থাকতে । খিল্লি নয়, ড্যাম সিরিয়াস ।

ভাটরেচার ( ষষ্ঠ কিস্তি )
  • 0.00 / 5 5
0 votes, 0.00 avg. rating (0% score)

Comments

comments