এই মুহূর্তে বাজারে সহজলভ্য বৃহত্তম মূল্যের নোট এবং দ্বিতীয় বৃহত্তম মূল্যের নোটের  মধ্যে মূল্যমানের  তফাত অপেক্ষাকৃত ছোট নোটটির মূল্যের উনিশ গুণ । উপরন্তু আমার অভিজ্ঞতা অনুযায়ী গত উনিশে নভেম্বর থেকে শহর এবং শহরতলির বেশ কিছু এ টি মে এক অদ্ভুত রসিকতা চালু হয়েছে । নোটনদীর যন্তরে দু হাজার টাকার নোট ছাড়া অন্য ছোট নোট প্রায় নেই। নোটস্রোত মাঝেমধ্যেই শুকিয়ে যাচ্ছে। ফলে শাটার নামানো এ টি এমের সামনে প্রায়শই স্মিত হাসি নিয়ে  হাজির গো মাতা বা বৃষভ পিতা। নোট আহরণের এক ব্যর্থ  প্রচেষ্টার অব্যবহিত পরে, এই ঘোর দুর্দশার সময়ে  একখান ধেড়ে , গাম্বাট পলিগ্যামিক ষাঁড়  দুই স্ত্রী – দুই কন্যা -আর এক সুপুত্রকে সঙ্গে নিয়ে সপরিবারে  পবিত্র দর্শন  দেবার পরে একবার ভাবলাম বলি যে – বাতিল নোট ব্রাঞ্চে জমা পড়ছে , খেতে হলে ওদিকেই যান । তারপর ভাবলাম কি জানি বাবা ! সরকারের তরফে পাকা খবর পেয়ে ভিজিল্যান্স-এ এসেছে বুঝি ।শুনছি এখানে -ওখানে বস্তা পড়ছে । সরকার বাহাদুর বলেছেন হয়তো – লেগে পড় ! তেলেভাজার ইস্টলের  এর পেছনে তো দেওয়াল থাকেই, অতএব ঘুঁটে শিল্পই বা পিছিয়ে থাকে কেন ।তারপরে আবার সিঙ্গুরের কারখানা ভেঙ্গে চাষের জমি হয়েছে। বাতিল নোটে কালো টাকা (ডবল পাপ) গিলে খেয়ে ডবল মাতাজীর হড়কা পেটখারাপ হলে  জমির হাল ফেরাতে বাড়তি সার কাজে লেগে যাবে।  ইনকাম ডাইভারসিফাই যতো হয়  ততো জি ডি পি'র-ই ভালো । সে লোকটা কে সেটা অবশ্য জানি না । 

সে যাই হোক, মনে মনে পিতা-মাতাকুল কে প্রণাম ঠুকলাম , সিম্বলিক ! কারণ গো মাতাও তো এখানে সিম্বলিক ! ভাই বোনেদের  প্রতি প্রীতিজ্ঞাপন আর করা হয়নি ।কারণ শ্রদ্ধা আর ভালোবাসার ফারাক আছে,আর পরেরটা সব জায়গায় দেখানো যায় না। পাব্লিক ডিসপ্লে অফ এফেকশন  ।  তলাফাটা, চামড়া ওঠা চর্মচটি পায়ে গলিয়ে হাড়মাস জ্বালিয়ে দেড় মাস ধরে দুনিয়া ঘুরে যা দেখছি তাতে করে এই ডি শার্প স্কেলের চড়ায় বোনা খেয়ালের জ্বালায় খুশির উতরাই আসতে কম করে মাস সাতেক ।   এমতাবস্থায় এই নোট ভাঙ্গানোর চাইতে জমি- বাড়ি(নিজের নামে কেনা এবং পুরসভায় খাজনা মেটানো)  লিখে দেওয়া বা সোনা – রুপোর (সাদা মাল)  লকেট ইত্যাদি ( যাদের আছে ) বন্ধক রেখে দেওয়া অনেক সহজতর কাজ । পুরো "বিয়ার গ্রিলস" লেভেলে সারভাইভ্যাল টেস্ট নিচ্ছেন মাইরি মাননীয় সরকার । পরিস্থিতি ফিরলেই মনে হয় সিয়াচেনে বা বাটালিক – দ্রাস -এ পোস্টিং দেবে । আমার অবশ্য শিবালিকের উত্তরেই যাবার ইচ্ছা নেই , বাটালিক তো সুদূর সুমেরু । সত্যি বলছি বস , আমার না খুব "ঠ্যানডা  লাগে" !  

ভাটরেচার (সপ্তম কিস্তি)
  • 0.00 / 5 5
0 votes, 0.00 avg. rating (0% score)

Comments

comments