দৃশ্য ১

[নেপথ্যে মহাভারত টাইটেল ট্র্যাক শোনা যাবে। পর্দা উঠলে দেখা যাবে মঞ্চে কাল/সময় হাতে ছাতা বা সাইকেলের স্পোক ঘোরাচ্ছে। টাইটেল ট্র্যাক শেষ হলে নেপথ্য থেকে ভয়েস ওভার শোনা যাবে।] 

কাল ম্যায় সময় হু। লেডিস অ্যান্ড জেন্টলম্যান, অব সময় আ গায়া হ্যায়, টু থাউস্যান্ড সিক্সটিন হস্তিনাপুর টাউনশিপ মামলে কি সুনওয়াই কি যো অব চল রাহা হ্যায় মহারাজ ধৃতরাষ্ট্রকে রাজসভা মে। চলিয়ে আপ কো অব লে চলতে হ্যায় হস্তিনাপুর রাজসভা মে সিধা প্রসারণ কে লিয়ে।

দৃশ্য ২

[হস্তিনাপুর সভাকক্ষ। নেপথ্যে বিউগল বাজতে শোনা যাবে। রাজসিংহাসনে উপবিষ্ট সানগ্লাস পরে ধৃতরাষ্ট্র। পাশে একদিকে একটি আসনে ভীষ্ম। অন্যদিকে আরও দুটি আসনে বসা গান্ধারী এবং কুন্তী। ধৃতরাষ্ট্রের পিছনে পাখা হাতে দাঁড়ানো সঞ্জয়। দুদিকের উইংসের পাশে দাঁড়ানো দুজন দ্বাররক্ষী।]

দ্বাররক্ষী ১ অব রাজসভা মে পদা রহে হ্যায় পাণ্ডুপুত্র পাণ্ডব।

[এক দিকের উইংস দিয়ে রাজসভায় একে একে কৃষ্ণ, যুধিষ্ঠির, ভীম এবং অর্জুনের প্রবেশ। নেপথ্যে শোনা যাবে "হাম পাঁচ" সিরিয়ালের টাইটেল ট্র্যাক।]

ভীষ্ম – ধর্মপুত্র, তুম তিন কিয়ু হো? বাকী দো কাঁহা হ্যায়?

যুধিষ্ঠির – পিতামহ, নকুল অউর সহদেব মাতুলালয় গয়ে হ্যায়। মাদ্রিদ মে।

ভীষ্ম – ওহ আচ্ছা। বহত বড়িয়া, বহত বড়িয়া।

দ্বাররক্ষী ২ – অব রাজসভা মে পদা রহে হ্যায় ধৃতপুত্র কৌরব।

[অন্য দিকের উইংস দিয়ে রাজসভায় একে একে শকুনি, দুর্যোধন, কর্ণ এবং দুঃশাসনের প্রবেশ। নেপথ্যে শোনা যাবে "নায়ক নেহি, খলনায়ক হু ম্যায়"।]

ধৃতরাষ্ট্র – সঞ্জয়, মেরে সারে কে সারে পুত্র আ গয়ে?

সঞ্জয় – নেহি মহারাজ, সির্ফ বড়ে দো আয়ে হ্যায়, শকুনি অউর কর্ণ কে সাথ।

ভীষ্ম – মহারাজ, ইয়ে টোয়েন্টি ফার্স্ট সেঞ্চুরি হ্যায়। আপকে জমানে মে সেঞ্চুরি মারনা আসান থা, অব নেহি। আজকাল ব্যাটসম্যান হেলমেট পহেনতে হ্যায় ঔর পিচ খুল্লা নেহি, প্রোটেক্টেড রহতা হ্যায়।

শকুনি – আরে দেবকীপুত্র, আপকা চক্র কাঁহা গয়া? সিকিউরিটি অন্দর লেনে কে লিয়ে অ্যালাও নেহি কিয়া ক্যা?

কৃষ্ণ – আরে মূর্খ, ইয়ে দেখ, আই-চক্র সিক্স এস। ইম্পোর্টেড স্লিম অ্যান্ড ট্রিম ডিসাইন, লেটেস্ট আপডেটস। একদম ঝাক্কাস মাল। সির্ফ পকেট মে রাখনে সে কভি কভি বেন্ড হো যাতা হ্যায়।

শকুনি – হুহ! আই-চক্র সিক্স এস। ইয়াহা সে তো সিডি হি লাগ রাহা হ্যায়। ইসসে বড়িয়া চিজ হামারে পাস হ্যায়। কিঁউ ভাঞ্জে?

দুঃশাসন – হাঁ, মামাশ্রী। ইসসে দুগুনা, তিনগুনা, সাতগুনা আচ্ছি চিজ হ্যায়। [কৃষ্ণের দিকে ফিরে] কিঁউ, চাহিয়ে ক্যা?

ধৃতরাষ্ট্র – অর্ডার অর্ডার, সভা কি কার্যক্রম শুরু কিয়া যায়ে। তাতশ্রী আপ হি বাতাইয়ে, ক্যায়সে সুলঝায়া যায় ইয়েহ লোচা?

ভীষ্ম – মহারাজ, কাল রাত ইউনাইটেড নেশনস সে মেল আয়া হ্যায়, ওয়হলোগ ইয়ুধ কে বিরুধ হ্যায়। ইধারমে কুরুক্ষেত্র ময়দান ভি খালি নেহিন হ্যায়। উয়হ রামদেব বাবা নে বুক করকে রাখ্খা হ্যায়। মুঝে লাগতা হ্যায় কুছ আউট অফ দ্য কোর্ট সেটলমেন্ট করনা পড়েগা।

শকুনি – ফির সে দ্যুত ক্রীড়া কি আয়োজন করে?

কৃষ্ণ – নেহিন, উয়হ ড্রামা ফির সে নেহিন চলেগা। মেরে পাস ইসসে বেটার এক আইডিয়া হ্যায়। কিয়ুনা হাম এক অন্তাক্ষরীকে আয়োজন করে। যো জিতেগা হস্তিনাপুর উসিকি হোগি।

শকুনি – হোয়াট অ্যান আইডিয়া স্যারজি। চলো অন্তাক্ষরী হি করতে হ্যায়।

ধৃতরাষ্ট্র – ঠিক হ্যায় তো অন্তাক্ষরী শুরু কিয়া যায়ে।

[ধৃতরাষ্ট্রের হাত রাখা থাকবে গান্ধারীর হাতের ওপর। ধৃতরাষ্ট্রের কথা শেষ হতেই গান্ধারী নিজের চোখের পট্টি একটু ফাঁক করে উঁকি মারার চেষ্টা করবে। গান্ধারীর সাথে ধৃতরাষ্ট্রের হাতও উঠবে গান্ধারীর চোখ পর্যন্ত]

ধৃতরাষ্ট্র – ধরমপত্নী, আপ ইয়েহ ক্যা কর রহে হ্যায়?

গান্ধারী – মাহারাজ মেরে বেটা পারফর্ম করেঙ্গে, মুঝে ভি তো দেখনা হ্যায়, না?

[ধৃতরাষ্ট্রের দীর্ঘশ্বাস। হঠাৎ একদিকের উইংস দিয়ে হুড়মুড় করে সভায় ঢুকে পড়বে "ডোরনব গোস্বামী"। হাতে একটা নিউস বুম। তাতে লেখা 'টাইমস কাও'।]

ডোরনব গোস্বামী – লেডিস অ্যান্ড জেন্টলম্যান, উই আর হ্যাভিং অ্যা ব্রেকিং নিউস হিয়ার। আই ডোরনব গোস্বামী, অ্যাম কারেন্টলি ইন হস্তিনাপুর, হোয়্যার পাণ্ডব অ্যান্ড কৌরব আর গ্যাদার্ড ফর অ্যা ব্যাটল অফ অন্তাক্ষরী টু সেটল ডাউন দ্য অনগোয়িং ডিসপিউট ওভার দ্য ল্যান্ড অফ হস্তিনাপুর। দ্য নেশন ওয়ান্টস টু নো হু উইল বি দ্য রিয়াল ওয়নার অফ দ্য ল্যান্ড। লেট আস স্পিক টু মিস্টার ধৃতরাষ্ট্র রিগার্ডিং দ্য ইস্যু। [ধৃতরাষ্ট্রের দিকে এগিয়ে গিয়ে] গুড মর্নিং মিস্টার ধৃতরাষ্ট্র। দ্য নেশন ওয়ান্টস টু নো হাও ক্যান ইউ ডিসাইড দ্য অ্যাকচুয়াল ওয়নার অফ দ্য ডিসপিউটেড ল্যান্ড হোয়েন দেয়ার আর হান্ড্রেডস অফ আদার স্টেকহোল্ডারস।

ধৃতরাষ্ট্র – আরে ইয়েহ কউন হ্যায় বে, সঞ্জয়?

সঞ্জয় – পাতা নেহিন স্যার।

ভীষ্ম – আরে কোই হ্যায়, ইসকো বাহার নিকালো।

[দুজন দ্বাররক্ষী এগিয়ে এসে ডোরনবকে চ্যাংদোলা করে সভা থেকে বের করে নিয়ে যায়। যেতে যেতে ডোরনব চেঁচাতে থাকে 'দ্য নেশন ওয়ান্টস টু নো...']

ধৃতরাষ্ট্র – চলো, অব জলদিসে চালু করো, ভাই। মেরা আইড্রপ লেনে কা টাইম হো রাহা হ্যায়।

কৃষ্ণ – ওকে! তো পাণ্ডবোঁ কে তরফ সে পহেলে আ রহে হ্যায় ওয়ার্ল্ড আর্চারি চ্যাম্পিয়ন, গাণ্ডীবধারী অর্জুন।

[অর্জুন তীর ধনুক হাতে নিয়ে কারসাজী দেখাতে দেখাতে স্টেজের মাঝখানে আসবে।]

শকুনি – ঔর কৌরবোঁ কে তরফ সে আ রহে হ্যায় সূতপুত্র করণ।

[কর্ণও তীর ধনুক হাতে কায়দা করতে করতে স্টেজের মাঝে আসবে। এবার অর্জুন আর কর্ণ একে অপরকে গোল হয়ে ঘুরতে থাকবে, হঠাৎ হাত দিয়ে মারার ভঙ্গী করে চুল ঠিক করবে, হঠাৎ হাত নিচু করে হাঁটু চুলকাবে ইত্যাদি ইত্যাদি। ব্যাকগ্রাউন্ডে বাজবে "ইয়েহ বন্ধন তো প্যার কা বন্ধন হ্যায়"। ট্র্যাক শেষ হতে না হতেই নেপথ্য থেকে শোনা যাবে রাখী গুলজারের গলা "মেরা বেটা আয়েগা!! জরুর আয়েগা!!" ]

কর্ণ [মেগা সিরিয়ালের ধরনে তিনবার মুখ ঘুরিয়ে] – কৌন? কৌন? কৌন?

অর্জুন – ইয়েহ আওয়াজ তো শুনা শুনা লাগ রাহা হ্যায়।

[রাখী গুলজারের প্রবেশ]

রাখী – করণ!! অর্জুন!! বেটেঁ, তুম দোনো আ গয়ে? চলো বেটেঁ, মেরে সাথ আও। হাম চলতে হ্যায়।

[রাখী কর্ণ অর্জুনের কাছে এসে তাঁদের হাত ধরে রওয়ানা দেয়।]

কুন্তী – আরে, তুম মেরে দোনো বেটোঁ কো, [জিভ কেটে] উপ্স, মেরে অর্জুন কো লেকে কাঁহা যা রহে হো?

রাখী [ঝগড়ার ভঙ্গীতে কোমরে হাত দিয়ে] – হেল্লো ম্যাডাম, ইয়েহ দোনো মেরে বেটেঁ হ্যায়, আপকি নেহি। কনফিউশন হ্যায় তো যাকে রাকেশ রোশন সে পুঁছ লো। [কর্ণ আর অর্জুনের দিকে ফিরে] চলো বেটেঁ, মেরে সাথ চলো।

[কর্ণ আর অর্জুন রাখীর হাত ধরে 'মাম্মা আ গয়ে' বলে নাচতে নাচতে বেরিয়ে যায়। কুন্তী হতাশ হয়ে নিজের আসনে বসে পড়ে।]

যুধিষ্ঠির [প্রস্থানোদ্যত অর্জুনের দিকে তাকিয়ে] – অর্জুন, মেরে ভাই…

কৃষ্ণ [যুধিষ্ঠিরকে, চিরঞ্জিতের স্টাইলে] – বৌ গেলে আবার বৌ পাওয়া যায় রে পাগলা, মা গেলে মা পাওয়া যায় না।

[যুধিষ্ঠির মাথা নাড়ে।]

কৃষ্ণ – ঠিক হ্যায়, তো অব পাণ্ডব টীম সে আ রহে হ্যায়, [ডব্লিউ ডব্লিউ ই অ্যানাউন্সারের স্টাইলে] ওয়েট টু হান্ড্রেড অ্যান্ড নাইনটি টু পাউন্ডস, হস্তিনাপুর হেভিওয়েট চ্যাম্পিয়ন, গদাধারী ভীম।

[ভীম গদা ঘোরাতে ঘোরাতে মঞ্চের মাঝে যায়। পিছনে ট্র্যাক বাজবে 'ছোটা ভীম ছোটা ভীম।']

শকুনি [কাঁচকলা দেখিয়ে] – ঘণ্টা হস্তিনাপুর হেভিওয়েট চ্যাম্পিয়ন। হামারে কৌরব টীম সে আ রহে হ্যায়, তুমহারে ভীম কা কাল, দুর্যোধন।

[এবার দুর্যোধন গদা ঘোরাতে ঘোরাতে মঞ্চের মাঝে আসে। পিছনে ট্র্যাক বাজবে 'কালিয়া কালিয়া']

ভীম [সানি দেওলের স্টাইলে] – দুর্যোধন, [নিজের বাইসেপ দেখিয়ে] ইয়েহ ঢাই কিলো কা হাত দেখা? ইয়েহ হাত নেহি, হাতোড়া হ্যায়। ইয়েহ একবার কিসিপে পড় যায়ে, তো উয়োহ উঠতা নেহি, উড় যাতা হ্যায়।

দুর্যোধন [সুনীল শেঠ্ঠী স্টাইলে] – অ্যায় ভীম। চুপ হো যা। তুঝপে সানি দেওল নেহি, লিয়োনে য্যাদা স্যুট করতা হ্যায়। আপনে মুহ বন্ধ কর, নেহি তো…

ভীম – দু ক্যা?

দুর্যোধন – তুঝে দু ক্যা?

ভীম – চল, শাম কো বাহার মিল, তুঝে দিখাতা হু।

দুর্যোধন – শাম কো কিঁয়ু? অভি বাহার চল। তুঝে অভি দিখাতা হু।

ভীম – শালে, একবার হাত লাগাকে দেখ, ক্যা করতা হু।

দুর্যোধন – তু একবার হাত লাগাকে দেখ, তেরা ক্যা হাল করতা হু।

[ভীম আর দুর্যোধন এভাবে একে অপরের দিকে ফাঁকা আস্ফালন করতে থাকে। কৃষ্ণ দুজনের মাঝে এসে দুজনকে সরিয়ে দেয়।]

কৃষ্ণ – গাইস, গাইস। স্টপ ইট। তুম দোনোকা অউকাত পাতা চল গয়া। যাও, আপনে আপনে সীট পে যাও।

[দুর্যোধন আর ভীম যে যার নিজের জায়গায় ফিরে যায়।]

কৃষ্ণ – ড্যাম ইট। অ্যায়সে চলনে সে কুছ নেহি হোনে ওয়ালা হ্যায়। সির্ফ তারিখ পে তারিখ, তারিখ পে তারিখ মিলেগা। ইসসে বেটার হ্যায় কি ড্রুপ্স কো বুলাতে হ্যায়।

যুধিষ্ঠির – ড্রুপ্স!! ড্রুপ্স কৌন?

কৃষ্ণ – আরে ধর্মপুত্র! ড্রুপ্স মীনস দ্রৌপদী।

শকুনি [শক্তি কাপুর স্টাইলে] – আউ! দ্রৌপদী।

দুঃশাসন [দুর্যোধনকে] – হেই ব্রো! লাস্ট টাইম কে তারাহ ম্যায় যাউঁ ক্যা উসকো লানে?

[একটা সেক্সি টপ আর মিনি স্কার্ট পরে এক হাতে ছোট্ট একটা মিরর, আরেক হাতে লিপস্টিক ঠোঁটে লাগাতে লাগাতে দ্রৌপদীর প্রবেশ। পিছনে ট্র্যাক 'দেসি গার্ল'।]

দ্রৌপদী [হেমা মালিনী স্টাইলে] – এক্সকিউজ মি। কিসিকো যানে কি জরুরত নেহি। ম্যায় খুদ হি আ সাকতি হু।

ভীষ্ম [লালসা ভরা চোখ বড় বড় করে, ধৃতরাষ্ট্রকে] – মহারাজ, দ্রৌপদী আয়া হ্যায়, দ্রৌপদী। ওহ ক্যা হট দিখ রহি হ্যায়।

ধৃতরাষ্ট্র [উত্তেজনায় সিংহাসনে প্রায় উঠে পড়ে] – ক্যা দ্রৌপদী আয়া হ্যায়? মুঝে ভি দেখনা হ্যায়, মুঝে ভি দেখনা হ্যায়। আব্বে সঞ্জয়, জলদি সে টেলিকাস্ট চালু কর।

কুন্তী [দাঁড়িয়ে উঠে গালে হাত দিয়ে] – বহুউউউ! বুজুর্গো কি সামনে তুম ইয়েহ ক্যায়সি বেশ মে আয়ে হো?

দ্রৌপদী – সাসু মা! যব মেরেকো পাঁচো মে বাঁট দি থি, তব কুছ নেহি হুয়া, অব শরমা রহে হো? আপ তো চুপ হি হো যাইয়ে।

[কুন্তী বসে পড়ে]

কুন্তী [গান্ধারীকে] – ক্যা জমানা আ গয়ে হ্যায়।

গান্ধারী – থ্যাঙ্ক গড! মেরে বেটোঁ নে অভি শাদী নেহি কিয়া।

দ্রৌপদী [কায়দা করে কৃষ্ণের কাঁধে হাত রেখে] – হেই কৃষ, বোলো ক্যা বোল রহে থে।

কৃষ্ণ – হেই ড্রুপ্স, ইউ নো হোয়াট আই ওয়াজ টেলিং…

[আচমকা কৃষ্ণের পকেটে মোবাইল বাজতে থাকে। রিং টোন 'রাধা অন দ্য ড্যান্সফ্লোর'। কৃষ্ণ দাবাং স্টাইলে রিংটোনের সাথে খানিক নেচে ফোনটা ধরে...]

কৃষ্ণ – হেই রাধে। লিসন, আই অ্যাম ইন আ ক্লায়েন্ট মিটিং, ওকে? আই উইল টক টু ইউ লেটার। লাভ ইউ, বেব।

[কৃষ্ণ ফোনটা কেটে দেয়। তারপর একটা দীর্ঘশ্বাস ফেলে।]

দ্রৌপদী – হাঁ বোলো…

কৃষ্ণ – হাঁ, ম্যায় ক্যা বল রহা থা…

[আচমকা পিছনে খুব হট্টগোল শোনা যায়। সবাই অবাক হয়ে উইংসের দিকে তাকায়। চিৎকার চেঁচামেচির মধ্য দিয়ে একজন মানুষ উইংস দিয়ে ঢোকে। পরনে সাদা কুর্তা পায়জামা, মাথায় সাদা টুপি, হাতে একটা ঝাড়ু। মাথার টুপিতে লেখা 'ম্যাঙ্গো ম্যান']

ম্যাঙ্গো ম্যান – এই, ক্যা নৌটঙ্কি চল রাহা হ্যায় ইয়াহা পে? চলো খালি করো। ঘর যাও সব।

কৃষ্ণ – আপ?

ম্যাঙ্গো ম্যান – হাঁ আপ। ম্যায় হু ইয়াহাঁ কা ইলেক্টেড সি এম। ইয়েহ রাজতন্ত্র আজকাল নেহি চলতা হ্যায়, অব গণতন্ত্র কা জমানা হ্যায়। জলদি সে ফোটো ইয়াহা সে, নেহি তো…

দুর্যোধন – নেহি তো?

ম্যাঙ্গো ম্যান – নেহি তো? অভি দিখাতা হু। [উইংসের দিকে গিয়ে] আরে মুন্না জারা শুন তো ইধার।

[মঞ্চে মুন্নাভাই আর সার্কিটের প্রবেশ। ব্যাকগ্রাউন্ডে বাজবে 'এম বোলে তোহ...']

মুন্নাভাই [সঞ্জয় দত্তের স্টাইলে] – এই সার্কিট, ক্যা চল রাহা হ্যায় বে ইয়াহা পে।

সার্কিট [আরশাদ ওয়ার্সির স্টাইলে] – ভাই, কোই পিরিয়ড মুভি কা শুটিং চলরেলি হ্যায় শায়দ।

ভীম [উত্তেজিত হয়ে] – অ্যায়, তুম জানতে হো ম্যায় কৌন হু? ম্যায় হু ভীম। [এবার শাহরুখ স্টাইলে] হেঁ হেঁ হেঁ নাম তো শুনা হি হোগা।

মুন্না – আব্বে তু ভীম হো ইয়া ভীম বার, হামে তো সির্ফ তুমহে ধোনা হ্যায়। সার্কিট চালু কর।

[মঞ্চে ধুন্ধুমার কাণ্ড শুরু হবে। সবাই সবাই কে কেলাবে। মাঝে ভীষ্ম মার খেয়ে দৌড়ে পালাবে। মহিলারা সরে পড়বে। হট্টগোলের সুযোগে ডোরনব আবার ঢুকে পড়ে ‘নেশন ওয়ানটস টু নো’ বলে চেঁচাতে থাকবে। ধৃতরাষ্ট্র মাঝে মেঝেতে হেরাফেরির পরেশ রাওয়ালের মত কিছু একটা খুঁজতে থাকবে আর বলতে থাকবে 'আরে মেরা গগল কিধার গয়া, মেরা রেব্যান কা গগল হ্যায় ভাই। বহুত মেহেঙ্গা হ্যায়।' আস্তে আস্তে মারামারি করতে করতে সবাই মঞ্চ ছেড়ে বেরিয়ে যাবে। শুধু ধৃতরাষ্ট্র আর ম্যাঙ্গো ম্যান থাকবে।]

ধৃতরাষ্ট্র – আরে ইয়াহা পে ইতনা সান্নাঠা কিঁয়ু হ্যায় ভাই। সঞ্জয়? তাতশ্রী? দুর্যোধন?

[একে একে সবাইকে ডাকতে ডাকতে ধৃতরাষ্ট্র মঞ্চ ছেড়ে বেরিয়ে যাবে। ম্যাঙ্গো ম্যান এসে সিংহাসনে জাঁকিয়ে বসবে। পিছনে কালের ভয়েস ওভার শোনা যাবে।]

কাল – লেডিস অ্যান্ড জেন্টলম্যান, কুর্সি লেকে ইয়েহ চক্কর পিছলে জমানে মে ভি থা। আজ ভি জারী হ্যায়। ঔর কাল ভি অ্যায়সে হি চলতা রহেগা।

 

 

——-

মহাভারত – আজ কাল
  • 0.00 / 5 5
0 votes, 0.00 avg. rating (0% score)

Comments

comments