- “ইশ্! কি দুর্গন্ধ! বলি মোজাটা কতদিন ধরে পরছ শুনি?”
- “এই তো মাত্র দিন তিনেক হল। একটা মোজাতেই তো ঠেকেছে। বাকি দুটোয় বুড়ো আঙুল উঁকি দেয় যে…”
- “অ! তা তোমার মোজার এই হাল আগে বলনি তো? ঠিক আছে কাল তুমি অফিসে বেরলে যাব’খন বিগবাজারে।”

পরের দিন অনিন্দ্য অফিসে পৌঁছে সবে নিজের কেবিনে বসেছে ওমনি মোবাইলের রিংটোন বেজে উঠল। স্ক্রিনে ফুটে উঠল “ডিক্টেটর”। কলটা রিসিভ করতেই ভেসে এলো,

- “আমি বিগবাজার এসেছি তোমার মোজা কিনতে। এখানে যা শব্দ হচ্ছে ফোনে রিং হলেও শুনতে পাব না। তাই আমি ফোন না ধরলে চিন্তা কোর না।”
- “না না! ঠিক আছে! ঠিক আছে! নো চিন্তা। তুমি মন দিয়া মোজা কেনো।”

কলটা কেটে কাজে মন দেয় অনিন্দ্য। এখন বেশ কিছুক্ষণ ওই তরফ থেকে নো কল, সো নো টেনশন। ঘণ্টা দুয়েক পরে ওর মোবাইলে ক্যাঁক ক্যাঁক শব্দে এসএমএস এলো একটা। মেসেজটা পড়েই অনিন্দ্যর চক্ষু চড়কগাছ। মেসেজে লেখা -”থ্যাঙ্ক ইউ ফর স্পেন্ডিং রুপিজ ৪২৯৫ ফ্রম ইওর ক্রেডিট কার্ড…”। অনিন্দ্যর মাথায় ঢোকে না সায়ন্তনী কোন মেটিরিয়ালের কতগুলো মোজা কিনল। হিসেব করে দেখল এক একজোড়া মোজার দাম যদি যদি চল্লিশ বিয়াল্লিশ করেও হয় তাহলেও মোটামুটি একশো জোড়া মোজা হয়। সায়ন্তনী কি অনিন্দ্যর রিটায়ারমেন্টের সময় হিসেব করে এক বারেই সব মোজা কিনে নিয়েছে? অনিন্দ্যর সব চিন্তাই তালগোল পাকিয়ে যাচ্ছে। পেটটাও কেমন যেন চিনচিন করছে। টয়লেট থেকেও ঘুরেও এলো একবার, তবুও শরীরটা কেমন যেন আনচান করছে। হাফডে সিএল নিয়ে ট্যাক্সি ধরে সোজা বাড়িতে। কলিং বেল টিপতেই দরজা খুলল সায়ন্তনী। অনিন্দ্যকে এই অসময়ে বাড়ি ফিরতে দেখে অবাক হয়ে জিজ্ঞেস করল,

- “তুমি? এই অসময়ে? শরীর ঠিক আছে তো?”
- “হ্যাঁ হ্যাঁ! শরীর ঠিক আছে। তুমি কখন ফিরলে?”
- “এই তো এখুনি। ভালোই হয়েছে তুমি এসে গেছ। চল তোমায় দেখাই কি কি কিনেছি…”

বাইরের দরজা বন্ধ করে অনিন্দ্যর হাত ধরে টানতে টানতে বেডরুমে এলো সায়ন্তনী। বিছানায় ছড়ানো গোটা তিনেক শপিং ব্যাগ। এক একটা শপিং ব্যাগ থেকে এক এক করে বের করে সায়ন্তনী দেখাতে লাগল ওর কেনাকাটার পসরা। দুটো কুর্তি, দুটো লেগিংস আর একটা সালোয়ার সেট। সব দেখিয়ে সায়ন্তনী বেজার মুখে অনিন্দ্যকে বলল,

- “জানো! বিগবাজারটা না আজকাল বড্ড চোট্টামি শুরু করেছে। ৭৫ টাকার নিচে একজোড়া মোজাও পাওয়া যায় না। তাই রেগে গিয়ে তোমার মোজা কেনাই হল না। কাল দেখি এক নম্বর মার্কেট যেতে হবে। ওখানে সবকিছুই বেশ সস্তা, পঁচিশ তিরিশে ঠিক পেয়ে যাব…….”

শপিং
  • 0.00 / 5 5
0 votes, 0.00 avg. rating (0% score)

Comments

comments