শান্তিনিকেতনের সোনাঝুরি জঙ্গলে বসে ভোর হতে দেখেছিলাম একদিন | কোনদিনও ভুলবো না সে সকাল | কথায় আমি নেহাতই কাঁচা | তাই বর্ণনা করার চেষ্টাও করবনা | রইল কিছু ছবি, আর রইল কিছু কথা | ছবিগুলি আমার কাছে যে অনুভুতি বয়ে আনে, সেই কথা | কথাগুলো সবই ধার করা |

 

তোমাকে স্বাগত এই বাগানে | এখানে হরেক জংলা | 
এখানে লতার পাশে লতার কলমি বোন | 
ফুল নামে ছোট ভাই, আরও ছোট কোলেরটা কুঁড়ি | 
ওই গাছ দিগম্বর | মাথার ওপরে মেঘে 
যথারীতি চাঁদের মা বুড়ি | 
ঘাসে আগাছায় হাঁটি | ভাঙ্গা সিঁড়ি, পানা ভরা পুকুরে পদ্মটি | 
এ বাগানে ভোরবেলা, স্বচক্ষে দেখেছি 
ঘাস থেকে ফুল তুলছে ডানা-ভাঙ্গা পাথরের পরি | 
এখানে আমার সাথে কষ্ট করে থেকে যাও, 
তোমাকে দেখিয়ে দেব, অঙ্গীকার করি |

 

প্রত্যেকেরই মনে মনে বোধ হয় অনেক স্বপ্ন থাকে – যেসব স্বপ্ন কোনদিন নিজের জীবনে সত্যি হয়না – কিন্তু তাদের স্বপ্ন অন্যের মধ্যে সত্যি হয়ে দেখা দেয় – জীবনের ধুলিমলিন গেরুয়া একঘেয়েমিতে হঠাৎ হঠাৎ রোদ-পড়া অভ্রর কুচির মতো সেসব স্বপ্ন ঝিকমিক করে ওঠে…

 

এই শান্ত নির্লিপ্ত, এখানের সবুজ শালীনতার স্নিগ্ধ আশ্চর্য জীবন, জঙ্গলের জাদু – সব মিলিয়ে নিজের বড় ভালো লাগে… এমনকি বাংলো থেকে না বেরোলেও ভালো লাগে | পুরনো বাংলোর শার্সিভাঙ্গা ঘরের চৌপাইয়ে শুয়ে শুয়ে জানালা দিয়ে আকাশ দেখা যায় – কতরকম ফুলের গন্ধ নাকে আসে | বাগানের বড় বড় ডালিয়াগুলোর আড়ালে আড়ালে মৌটুসী পাখিরা দুপুরের রোদে লুকোচুরি খেলে | পাশের সেগুন জঙ্গল থেকে মোষের গলায় কাঠের ঘন্টার গম্ভীর ডুংডুঙ্গানি ভেসে আসে…

 

রুপকথা আনাচ কানাচ…

 

শেষ রাত্রের নদীর জলে যখন চিকচিকে মিষ্টি জ্যোৎস্না পড়ে, শেওলায় কূলে তাল দেয়, তখন মনে হয় সেখানে তুমি আছ, ছোট্ট ছেলে তার কচি মুখ নিয়ে ভুরভুরে কচিগন্ধ সমস্ত গায়ে মেখে যখন নরম হাতদুটি দিয়ে গলা জড়িয়ে ধরে, যেন মনে হয় সেখানে তুমি আছ, Orion যখন পৃথিবীর গতিতে সমস্ত রাত্রির পরে দূরে পশ্চিম আকাশে ঝুলে পড়ে, সেই রুদ্র প্রচন্ড অথচ না-ধরা-দেওয়া গতির বেগে তুমি আছ, জনহীন মাঠের ধরে গ্রাম্য ফুলের দল যখন ঠাসাঠাসি করে দাঁড়িয়ে অকারণে হাসে, তখন মনে হয় তাদের সেই সরল প্রাণের প্রাচুর্য – তার মধ্যে তুমি আছ |

 

শীতের সন্ধায় আমার তোমার কি কোথাও হারিয়ে যাবার কথা? আমার তোমার কি কোথাও লুকিয়ে থাকার কথা? সময় কি আমাদের স্বপ্ন দেখাবে, নাকি নিয়ে যাবে আরো দুরে? চলো ভাবি এই আশায় একসাথে হাত ধরে.. সেই রোদ জ্বলা মিষ্টি শীতে ভোরে, বিকেলে…

 

আজ যেমন করে গাইছে আকাশ, তেমনি করে গাও গো.. 
আজ যেমন করে চাইছে আকাশ, তেমনি করে চাও গো..

 

কোন ভালোবাসারই ভবিষ্যৎ নেই | ভালোবাসা কেবল বর্তমানের – যা কেবল অতীতেই পৌছে যায় একদিন | ভালোবাসা একমাত্র ভালোবাসাই সৃষ্টি করতে পারে | এক একটি দুর্লভ মুহুর্ত – এক একটি সুগন্ধ ক্ষয়িষ্ণু ক্ষণ – যা আর কেঁদে কেঁদেও পরে ফিরে পাওয়া যায় না |

 

হোক কলরব..

 

হৃদয়ের কাছাকাছি সেই 
প্রেমের প্রথম আনাগোনা 
সেই হাতে হাত ঠেকা    সেই আধো চোখে দেখা 
চুপি-চুপি প্রাণের প্রথম জানাশোনা ||

সোনাঝুরি
  • 4.00 / 5 5
1 vote, 4.00 avg. rating (81% score)

Comments

comments