তুমি আমাকে
বার বার আতাক‍্যালানে বলেছো,
খারাপ কিছু বলনি,
আমার মাও তাই বলত, ছোটবেলায়।

আমি নাকি পায়ের দিকে তাকিয়ে হাঁটিনি কখনো
অত পায়ের পরে পা কোথায় পড়বে
হিসেব কষলে
হোঁচট খাওয়ার মজাটাই তো মাটি।
পা পড়ল হঠাৎ জাগা গর্তে যখন
আদর করে মাটি টেনে নেয় লতাপাতার সাথে,
জল হাওয়া দিয়ে বড় করে,
খড়ি ওঠা চামড়ার গায়ে চুমু খেয়ে বলে,
আনন্দ কর!

তুমি আমাকে তারকাটা বলেছো
অনেকবার, ঠিকই চিনেছো,
কতকিছু হারিয়ে ফেলেছি,
যা কখনও আমার ছিল না।
আসলে, কিছুই নিজের করে নিতে পারিনি কখনও।
জলস্রোত দোরে এসে ফিরে গেছে,
আমি তেষ্টায় মরেছি,
মুখ ফুটে চাইতে পারিনি।
সবাই কি সব পারে? পারতেই হয়?

এখন যেমন, রাত হয়েছে,
রাস্তার পাশে সারি সারি গাছ
পাতা ঝরাচ্ছে অনন্ত কাল ধরে
একটার পর আরো একটা,
অগুনতি, হলুদ লাল আগুন রঙা,
পথবাতি আলো করে রেখেছে ডালপালা,
ফিসফিসিয়ে হাওয়া বইছে, নিরন্তর।

আর আমি, ঘরে ফেরার রাস্তাটাই
বেমালুম ভুলে মেরে দিয়েছি।

নিরূদ্দেশ
  • 0.00 / 5 5
0 votes, 0.00 avg. rating (0% score)

Comments

comments